How to find and install all the drivers for Windows !

উইন্ডোজ ড্রাইভার গুলো খুব সম্ভবত উইন্ডোজ পিসি এবং ল্যাপটপ ইউজ করতে গিয়ে ইউজাররা সবথেকে বেশি যেসব ঝামেলায় পড়েন, তার মধ্যে সবথেকে বড় ঝামেলাগুলোর মধ্যে অন্যতম। আপনি যদি দেখেন যে আপনার পিসিতে আপনি নতুন কোন একটি কম্পোনেন্ট কানেক্ট করলেন, তবে সেই কম্পোনেন্টটিকে আপনার পিসি ডিটেক্ট করতে পারছে না কিংবা সেটি ভালোভাবে কাজ করছে না, এর সবথেকে সম্ভাব্য কারন হতে পারে, সেই কম্পোনেন্টটির জন্য আপনার পিসিতে যে ড্রাইভারটি ইন্সটলড থাকা দরকার, সেটি নেই।

আপনি যদি অনেক আগে থেকে উইন্ডোজ পিসি ইউজার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি অবশ্যই মাঝে মাঝে উইন্ডোজ ড্রাইভারস নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন। উইন্ডোজের এই ড্রাইভারস নিয়ে সমস্যাটি যেভাবে ফিক্স করবেন এবং উইন্ডোজের জন্য সবধরনের ড্রাইভার যেভাবে সহজেই খুঁজে পাবেন এবং ইন্সটল করবেন, এই বিষয়টি নিয়েই আজকে আলোচনা করবো।

 

ড্রাইভার ডিস্ক সমস্যা

ড্রাইভার নিয়েই সমস্যায় ল্যাপটপের তুলনায় বেশি পড়তে ডেস্কটপ ইউজারদের। এর কারন হচ্ছে, ল্যাপটপের সব কম্পোনেন্টস আগে থেকেই ফিক্সড থাকে তবে ডেস্কটপের কম্পোনেন্টস আমরা নিজের ইচ্ছামত সিলেক্ট করে ডেস্কটপ বিল্ড করে থাকি। তবে ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ যেটা হোক, সবকিছুর সাথেই আমাদেরকে এক বা একাধিকটি ডিস্ক দেওয়া হয়। যেমন- মাদারবোর্ডের ড্রাইভার ডিস্ক, গ্রফিক্স কার্ডের ডিস্ক ইত্যাদি। এই ডিস্কগুলোর মধ্যেই এসব কম্পোনেন্টসের ড্রাইভার থাকে যেগুলো এই ডিস্কটি ইনসার্ট করে ইন্সটল করে নেওয়া যায়। তবে বাংলাদেশের অনেক পিসি ইউজারই এটা মনে করে থাকেন যে, ওই ড্রাইভারের ডিস্কটি হারিয়ে গেলেই ড্রাইভার ইন্সটল করার আর কোন আশা নেই, যা সম্পূর্ণ একটি হাস্যকর এবং ভুল ধারনা।

ড্রাইভার ডিস্কটি ছাড়াও আরও অনেকভাবে পিসিতে প্রয়োজনীয় ড্রাইভার ইন্সটল করা সম্ভব এবং এমনকি আরও ভালোভাবে ইন্সটল করা সম্ভব। তবে আপনি যদি এই বিশ্বাস নিয়েই থাকেন যে উইন্ডোজ ড্রাইভার ডিস্কটি ছাড়া আপনি ড্রাইভার ইন্সটল করবেন না বা ড্রাইভার ডিস্কটি আপনার খুবই দরকার, তাহলে ডিস্কটি এভাবে ফেলে না রেখে প্রথমে সম্পূর্ণ ডিস্কটির একটি ব্যাকআপ নিয়ে রাখুন, যাতে ডিস্ক হারিয়ে গেলে আপনাকে হার্ট অ্যাটাকের শিকার না হতে হয়। জাস্ট ডিস্কটি পিসিতে ইনসার্ট করে ডিস্কের সব ফাইলগুলো আপনার হার্ড ড্রাইভে একটি Drivers নামের একটি নতুন ফোল্ডার করে রেখে দিতে পারেন। যদিও ড্রাইভার ডিস্ক আপনার খুব বেশি দরকার পড়বে না, তবুও ডিস্কটির ব্যাকআপ নিয়ে রাখা অবশ্যই একটি ভালো সিদ্ধান্ত!

 

উইন্ডোজ আপডেট

বাংলাদেশের অধিকাংশ পিসি ইউজারই উইন্ডোজ ইন্সটল করার পরে সবার প্রথমে চিন্তা করেন যে উইন্ডোজ আপডেট কিভাবে ডিজেবল করা যায়। বাংলাদেশের পিসি ইউজারদের অধিকাংশই উইন্ডোজ আপডেট করতে চান না। এর কারন যদিও যৌক্তিক। যেমন- বাংলাদেশের অনেক কম মানুষই হাই স্পিড আনলিমিটেড ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন। আর লিমিটেড ইন্টারনেট ইউজার হলে উইন্ডোজ আপডেট না দিতে চাওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে অনেকেই হয়তো জানেন না যে, উইন্ডোজ আপডেট শুধুমাত্র আপনার উইন্ডোজকেই আপডেট দেয়না, বরং সাথে আপনার ডিভাইসের ড্রাইভারগুলোকেও আপডেট করে।

 

আপনি যদি উইন্ডোজের লেটেস্ট ভার্সন ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি উইন্ডোজ আপডেট করার সময় নিচে দেখতে পাবেন যে উইন্ডোজ আপডেটের সাথে সাথে উইন্ডোজ আপনার ডিভাইসের কোন কোন ড্রাইভার আপডেট করছে এবং ইন্সটল করছে। আপনি পিসিতে উইন্ডোজ ইন্সটল করার পরেই যদি উইন্ডোজ আপডেট করেন, তাহলে আপনার প্রয়োজনীয় অধিকাংশ ড্রাইভারসই উইন্ডোজ নিজেই ইন্সটল করে দেবে। তবে হ্যা, সব ড্রাইভারগুলো হয়তো উইন্ডোজ আপডেটে আপনি পাবেন না।

 

উইন্ডোজ ড্রাইভার

 

যেমন- আপনার পিসিতে যদি ইন্টাগ্রেটেড জিপিইউ এর পাশাপাশি এনভিডিয়া বা এএমডির একটি এক্সটারনাল হাই পারফরমেন্স জিপিইউ থাকে, সেই জিপিইউটির ড্রাইভারটি হয়তো আপনি উইন্ডোজ আপডেটে পাবেন না। সেগুলো ম্যানুয়ালি ইন্সটল করতে হবে। এই বিষয়ে পরে বলছি। তবে ছোট ছোট অধিকাংশ ড্রাইভারই আপনি উইন্ডোজ আপডেট থেকে পেয়ে যাবেন। আর কোন কোন ড্রাইভার পেলেন এবং কোন কোন ড্রাইভার পেলেন না, সেটাও উইন্ডোজ আপডেট সেকশন থেকেই জানতে পারবেন।

 

থার্ড পার্টি উইন্ডোজ ড্রাইভার প্রোগ্রাম

এগুলোর কথা আমরা সবাই জানি। আপনি ড্রাইভার সমস্যা নিয়ে কারো কাছে সল্যুশন চাইলে অধিকাংশ পিসি ইউজারের কাছে আপনি যে সল্যুশন শুনবেন তা হচ্ছে একটি থার্ড পার্টি ড্রাইভার ইন্সটলার বা ড্রাইভার আপডেটর ইন্সটল করা এবং সেটির সাহায্যে পিসির সব ড্রাইভার ইন্সটল এবং আপডেট করা। তবে আপনি ইন্টারনেটে উইন্ডোজ ড্রাইভার ইন্সটলার নামের যতগুলো সফটওয়্যার পাবেন, সবগুলো প্রোগ্রাম এবং সফটওয়্যার কিন্তু সেফ নয়। এর মধ্যে অধিকাংশ প্রোগ্রামই ভাইরাস কিংবা ম্যালওয়্যার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তাই থার্ড পার্টি ড্রাইভার আপডেটর ব্যবহার করলেও শুধুমাত্র ট্রাস্টেড প্রোগ্রামগুলোই ব্যবহার করবেন।

 

উইন্ডোজ ড্রাইভার

 

আমি সাজেস্ট করবো ড্রাইভার আপডেট করার জন্য IObit Driver Booster অথবা DriverPack Solutions সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে। এর মধ্যে DriverPack Solutions সফটওয়্যারটি একটু লাইটওয়েট। তবে এই দুটি সফটওয়্যারই সেফ এবং সহজ। আপনাকে জাস্ট সফটওয়্যারটি ওপেন করতে হবে, দরকার হলে আপনার পিসি স্ক্যান করতে হবে এবং এখানেই আপনাকে দেখানো হবে যে আপনার পিসিতে কোন কোন ড্রাইভার ইন্সটল করা আছে এবং কোন কোন ড্রাইভার ইন্সটল করা নেই।

 

ম্যানুফ্যাকচারারের ওয়েবসাইট

ড্রাইভার আপডেট করার সবথেকে নির্ভরযোগ্য ওয়ে হচ্ছে সরাসরি ড্রাইভার বা ডিভাইসটির ম্যানুফ্যাকচারারের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ড্রাইভার ডাউনলোড করা। এক্ষেত্রে আপনি দুটি বিষয়ে নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন। প্রথমত, আপনি একেবারে লেজিট ড্রাইভার পাবেন এবং ড্রাইভারে ইন্সটলারের সাথে কোন ব্লোটওয়্যারে বা বান্ডেলওয়্যার কিংবা কোনধরনের ম্যালওয়্যার পাবেন না। এছাড়া আপনি ডিভাইস ম্যানুফ্যাকচারারের ওয়েবসাইট থেকে ড্রাইভার ডাউনলোড করলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই লেটেস্ট ভার্সনটি পাবেন। যেসব ড্রাইভার আপনি উইন্ডোজ আপডেট কিংবা অন্য ওপরের কোন মেথডে পাবেন না, সেগুলো আপনি সরাসরি ডিভাইস ম্যানুফ্যাকচারাররের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে নেবেন।

 

উইন্ডোজ ড্রাইভার

 

এটা একেবারেই কঠিন কিছু নয়। এর জন্য আপনাকে জাস্ট আপনি যে ডিভাইসটির ড্রাইভার ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন, সেটির ম্যানুফ্যাকচারের নাম এবং সেটির মডেল নাম্বার জানতে হবে। যেমন ধরুন, আপনি যদি আপনার এনভিডিয়া গ্রাফিক্স কার্ডের ড্রাইভার ডাউনলোড করতে চান, তখন আপনাকে গুগলে গিয়ে Nvidia [Model no] driver লিখে সার্চ করতে হবে। যেমন- Nvidia Geforce GTX 1050 Driver। এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে প্রথম সার্চ রেজাল্টেই আপনার কাঙ্খিত ড্রাইভারটির অফিশিয়াল ডাউনলোড লিংক/ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। ঠিক তেমনি আপনার ল্যাপটপের জন্য প্রয়োজনীয় সব উইন্ডোজ ড্রাইভার ডাউনলোড করতে আপনাকে গুগলে ল্যাপটপের মডেল নাম্বার লিখে সার্চ করতে হবে। যেমন- Asus X550CA Drivers। বাকিটা আশা করি আপনি কমন সেন্স ব্যবহার করেই বুঝে যাবেন।

  • Share on :

CATEGORIES



TAG CLOUD

POST COMMENT

For post a new comment, You need to login first.

COMMENTS (2)

nice post

hi